,


কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং শুরু করবেন !

কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং শুরু করবেন !

ধরুন আপনি নতুন কোন বিজনেস স্টার্ট আপ করলেন । কিন্তু স্বাভাবিক ভাবেই আপনার কাছে ইমেইল না থাকার ই কথা । এই অবস্থায় আপনি যদি ইমেইল মার্কেটিং শুরু করতে চান তাহলে আপনাকে রিসার্চ এর মাধ্যমে  ইমেইল বের করে সেখানে আপনার পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপন পাঠাতে পারেন । কিন্তু এই পদ্ধতিতে ইমেইল মার্কেটিং করলে তা আপনার বিজনেস এর জন্য ফলপ্রসূ কম বা নাও হতে পারে । একটা উদাহরণ দিচ্ছি বিষয়টা ক্লিয়ার করার জন্য । ধরুন আপনি ভাইপার সুজ নামে নতুন একটা জুতার বিজনেস শুরু করছেন । এই অবস্থায় আপনার টার্গেট কাস্টমার কারা তা আপনি জানেন না । এখন আপনি রিসার্চ এর মাধ্যমে যে ইমেইল গুলো কালেক্ট করলেন তার অধিকাংশ ইমেইল ইনভ্যালিড হতে পারে । ইনভ্যালিড ইমেইল এ মেইল পাঠালে হার্ড বাউন্স করবে । তাছাড়া আপনি নিশ্চয় চাইবেন না অযথা নষ্ট ইমেইল এ মেইল পাঠাতে । কারন এটা সেন্ড করার পিছনে আপনার অবশ্যই একটা পরিমাণ ব্যয় থাকবে । তাই কিছু ইমেইল ভেরিফায়ার সফটওয়্যার এর মাধ্যমে প্রথমেই ইনভ্যালিড ইমেইল গুলো বাদ দিতে হবে । এবার ইন ভ্যালিড ইমেইল গুলো বাদ দেবার পরে যাদের কে আপনি ইমেইল পাঠাবেন তাদের মধ্যে হয়ত ৫০% এর আপনার পণ্য বা সেবার প্রতি আগ্রহ নাও থাকতে পারে ।

তবে আপনি চাইলে এখান থেকে ও আপনি আপনার টার্গেট কাস্ট মার দের খুজে বের করতে পারেন । ইমেইল মার্কেটিং টুলস গুলোর সাহায্যে সহজেই ট্র্যাকিং করার যায় কারা আপনার মেইল ওপেন করল, কত টাকার পণ্য বা সেবা নিল ইত্যাদি । ট্র্যাক করে দেখলেন যারা আপনার মেইল ওপেন করছে তাদের কে সেগমেন্ট করে অন্য একটা লিস্ট এ নিয়ে গেলেন । তবে চিন্তার কিছু নেই এখান থেকে যদি আপনার জন্য ২% ও সেলস এ কনভার্ট হয় সেটার এমাউন্ট টা ও হিউজ হতে পারে । ধরুন কেউ আপনার পণ্য বা সেবা নিল ই না তার পর ও তারা যদি এটা ইমেইল ওপেন করে তাহলেই আপনি সফল । সেলস আজ না হোক কাল হবে কিন্তু আপনি তাদেরকে যে আপনার পণ্য বা সেবার ধারণা দিয়েছেন এটাই অনেক । আপনার পণ্য বা সেবার ধারণা ক্রেতাদের মনে সৃষ্টি করাই আপনার প্রাথমিক লক্ষ্য হওয়া উচিৎ ।

এবার আসি আমাদের টার্গেটেড বা কাঙ্ক্ষিত কাস্টমারদের ইমেইল কিভাবে পেতে পারি । এই পদ্ধতিকে হোয়াইট হ্যাট মেথড বলে । এই পদ্ধতিতে আপনি কাস্টমারদের অনুমতি নিয়ে ইমেইল কালেক্ট করবেন যাকে ডাবল অপটিন বলে । ডাবল অপটিন মানে হল আপনি সাইন আপ ফর্ম এর মাধ্যমে ইমেইল কালেক্ট করবেন যাতে আমার কাস্টমার গন স্বেচ্ছায় সাইন আপ করবে এবং সাইন আপ করার পরে তাদের ইমেইল ভ্যালিড কিনা তা যাচাই এর জন্য তাদের ইমেইল এ একটা কনফার্মেশন ইমেইল যাবে । তারা সাইন আপ করার পরে যদি কনফার্ম এ ক্লিক করে তবেই তাদের ইমেইল লিস্ট আপনার ডাটাবেজ এ যুক্ত হবে এবং আপনি এই পদ্ধতিতে আপনার বিজনেসের ১০০% টার্গেটেড ও ভ্যালিড কাস্টমারদের ইমেইল পাবেন ।

বিভিন্ন ইমেইল মার্কেটিং টুলস গুলো তাদের সাইন আপ ফর্ম আপনার ওয়েবসাইট এ ইন্টেগ্রেট করার জন্য এমবেডেড কোড দেয় । আর আপনার সাইট যদি ওয়ার্ডপ্রেস এ করা থাকে তাহলে তো আরও সুবিধা । বিভিন্ন প্লাগিন এর মাধ্যমে আপনি নিজেই এটা ইন্টেগ্রেট করতে পারবেন । ওয়েবসাইট সাইন আপ ফর্ম ইন্টেগ্রেট করার সুবিধা হল আপনার সাইটের ভিসিটর হয়ত প্রতিদিন আপনার সাইট ভিসিট করে না । তাই সে যদি আপনার ওয়েবসাইট এর সাইন আপ ফর্ম এ সাইন আপ করে রাখে তাহলে পরবর্তীতে আপনার কোন অফার বা বিজ্ঞাপন যদি তার মেইল এ পাঠান তাহলে সে আপনার সাইট এ আবার ভিসিট করবে এবং তার কাঙ্ক্ষিত পণ্য বা সেবাটি নিতে পারবে । এভাবে আপনি আপনার রেগুলার কাস্ট মার দের সাথে এঙ্গেজমেন্ট বাড়াতে পারেন । তাছাড়া আপনি চাইলে আপনার সাইন আপ ফর্ম সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রমোট করে আপনার টার্গেটড কাস্টমারদের মেইল খুজে বের করতে পারেন । এভাবে ও আপনি আপনার টার্গেটেড কাস্টমারদের মেইল বের করে লিস্ট বিল্ডিং করে রাখতে পারেন এবং পরবর্তীতে আপনার পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপন পাঠাতে পারেন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট দেখুন